বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২

বিশ্বনাথে ঐতিহ্যের পলো বাওয়া উৎসব


সিলেট জেলার বিশ্বনাথ উপজেলায় বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে বার্ষিক পলো বাওয়া উৎসব সম্পন্ন হয়েছে। উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের গোয়াহরি গ্রামের দক্ষিণের (বড়) বিলে শনিবার (১৬ জানুয়ারি) সকালে ওই পলো বাওয়া উৎসব অনুষ্ঠিত হয়।

এতে অংশগ্রহন করেন গ্রামের তিন শতাধিক মানুষ। সৌখিন শিকারীরা পলো দিয়ে মাছ ধরেছেন; অনেকেই মাছের মধ্যে ছিল বোয়াল, শউল, মিরকা, কারপু, বাউশ, ঘনিয়া, রুই।

গোয়াহরি গ্রামের ঐহিত্য অনুযায়ী প্রতি বছরের পহেলা মাঘ এই পলো বাওয়া উৎসব অনুষ্ঠিত হয়। পলো বাওয়া উৎসবকে কেন্দ্র করে গোয়াহরি গ্রামে গত কয়েকদিন ধরে উৎসবের আমেজ রিবাজ করছিল।

পলো বাওয়া এই উৎসবে অংশ নিতে শনিবার সকাল ৯টা থেকে গোয়াহরি গ্রামের সৌখিন মানুষ বিলের পারে এসে জমায়েত হতে থাকেন। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বিলের পারে লোকসমাগম বাড়তে থাকে।

পূর্ব নির্ধারিত সময় ১০টায় সবাই এক সঙ্গে বিলে নেমে শুরু করেন পলো বাওয়া। শুরু হয় ঝপ ঝপ পলো বাওয়া। প্রায় দুই ঘন্টাব্যাপী এ পলো বাওয়া উৎসবে গোয়াহরি গ্রামের সব বয়সি পুরুষ অংশ নেন।

সরেজমিনে গোয়াহরি বিলে গিয়ে দেখা গেছে, মাছ শিকার করতে নিজ নিজ পলো নিয়ে বিলের ওপর ঝাপিয়ে পড়েন লোকজন। যাদের পলো নেই তারা মাছ ধরার ছোট ছোট বিভিন্ন জাল নিয়ে মাছ শিখারে ব্যস্ত সময় কাটান।

এসময় মাছ ধরার এ দৃশ্যটি উপভোগ করতে বিলের পারে ছোট ছোট শিশু থেকে বৃদ্ধ বয়সের পুরুষ-মহিলা, দূর থেকে আসা অনেকের আত্বীয়-স্বজন ও বন্ধু-বান্ধবকে দাড়িয়ে থাকতে দেখা যায়।

প্রতি বছরের ন্যায় এবারও প্রায় তিন শতাধিক লোক পলো বাওয়া উৎসবে অংশগ্রহন করেন। তবে পলো বাওয়া উৎসবের আনন্দটা যুবক-বৃদ্ধের চেয়ে ছোট ছোট শিশুদের মাঝেই একটু বেশি আনন্দের মনে হয়েছে।

পলো বাওয়া উৎসবে কোন একজন একটি মাছ ধরার সঙ্গে সঙ্গে অন্যরা আনন্দে উৎফুল্ল হয়ে উঠেন। ছোট-বড় কোন ভেদাভেদ না করে সবাই মিলে পূর্ব পুরুষদের মত প্রায় দুই শত বছর ধরে এই পলো বাওয়া উৎসবে যোগ দেন গোয়াহরি গ্রামের শতশত মানুষজন। তবে এই পলো বাওয়া দেখতে আশপাশের গ্রামের লোকজন সকাল থেকেই ছোট ছোট দল বেঁধে আসতে থাকেন গোয়াহরি বড় বিলে।


অন্যান্য খবর

বার্তাবাহক সর্বশেষ

উপরে